1. munnanews@gmail.com : Mozammel Hossain Munna : Mozammel Hossain Munna
  2. badal.satvnews@gmail.com : Badal Saha : Badal Saha
  3. jmmasud24@gmail.com : Mozammel Hossain Munna : Mozammel Hossain Munna
সিংগা বিলে জলাবদ্ধতায় বোরো চাষ ব্যাহত | Dainik Mohona
বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:২২ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
দৈনিক মোহনা পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাদের স্বাগতম। করোনা ভাইরাস রোধে নিয়মিত সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার রাখুন, বাইরে গেলে মাস্ক ব্যবহার করুন। ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
গোপালগঞ্জে উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর জাতীয় পতাকা র‌্যালী গোপালগঞ্জ ক্যামিষ্ট এন্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির অভিষেক ৭ ডিসেম্বর গোপালগঞ্জ মুক্ত দিবস  গোপালগঞ্জে অনুষ্ঠিত হলো গ্রাম বাংলার হারিয়ে যাওয়া যাত্রাপালা গোপালগঞ্জে গণপ্রকৌশল দিবস ও আইডিবি’র ৫১ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত রোহিঙ্গাদের দেশে প্রত্যাবর্তনে যেন প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না করে–রেড ক্রিসেন্ট চেয়ারম্যান রিপোর্টার্স ফোরাম, গোপালগঞ্জ ।। যায়যায়দিনের নজরুল সভাপতি, ডিবিসি নিউজের বাপী সাধারন সম্পাদক মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করল ‘জ্ঞানের আলো পাঠাগার’ গোপালগঞ্জে সাংবাদিকের বাবার মৃত্যু জাতির পিতার সমাধিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক

সিংগা বিলে জলাবদ্ধতায় বোরো চাষ ব্যাহত

  • ..............প্রকাশিত : শুক্রবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৩৭ জন সংবাদটি পড়েছেন।

স্টাফ রিপোর্টার।।

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার সিংগা গ্রামের বিলে জলাবদ্ধতার কারনে জমিতে ইরি-বোরো চাষ করতে পারছেন না সহস্রাধিক কৃষক। এতে প্রায় এক হাজার একর জমিতে ইরি-বোরো চাষ ব্যাহত হচ্ছে। এ নিয়ে সহস্রাধিক কৃষক দঃচিন্তা ও হতাশায় ভুগছেন।জলাবদ্ধতা নিরসনের ব্যাপারে ওই এলাকার কৃষকেরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

কাশিয়ানী উপজেলার সিংগা গ্রাম মূলতঃ নিম্নাঞ্চল হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে বিলের অধিকাংশ জমি জলমগ্ন থাকে।ফলে একমাত্র ফসল ইরি-বোরো মৌসুমে ধান চাষের উপরই নির্ভরশীল থাকতে হয় এ অঞ্চলের কৃষকদের।

কিন্তু, ওই বিলে কোন খাল না থাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। এসব বিলের পানি ইরি-বোরো মৌসুমেও পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় প্রয়োজনের থেকে বিলের জমিতে পানি বেশী থাকে। যে কারনে অন্ততঃ এক হাজার একর জমি অনাবাদি থেকে যাচ্ছে প্রতি বছর।

চলতি মৌসুমে ভাংগা দমদম, সিংগা, জগত পট্টি, যদুপুর মৌজার প্রায় এক হাজার একর  জমিতে সময় মত ধান রোপন করা যাচ্ছে না। জলাবদ্ধতার কারনে কৃষকেরা তাদের নিজ নিজ জমির কিছু অংশে ধান রোপন করতে পারছেন, আবার কিছু অংশে ধান রোপন করতে পারছেন না।

সিংগা গ্রামের কৃষক বৈদ্যনাথ বিশ্বাস, বিবেক সরকার, কালিপদ বিশ্বাস জানান, শুধু ধান রোপনের সময়েই নয়, ধান পাকার সময় বর্ষার পানি এসে পাকা ধান তলিয়ে যাওয়ায় আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হই। আমরা বিষয়টি ইতিমধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ড ও কৃষি বিভাগের কাছে প্রতিকার চেয়ে আবেদন করেছি। আমাদের জমির পানি নামানোর ব্যবস্থা করে দিলেই আমরা খুশি। তাহলে আমরা তলিয়ে থাকা জমিতে ফসল ফলাতে পারবো।

গোপালগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ড. অরবিন্দ কুমার রায় গোপালগঞ্জ জেলাটিই মূলতঃ নিম্নাঞ্চল। সিংগা বিলে যাতে খাল কেটে কৃষকদের সমস্যার সমাধান করা হয় সে ব্যাপারে আমি সংশ্লিষ্ট দফতরে কথা বলবো।

ওই এলাকার জলাবদ্ধতা যাতে না থাকে সে ব্যাপারে আমরা চেষ্টা করবো বলে জানালেন বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ ফাইজুর রহমান।

কাশিয়ানীর সিংগা বিলের পানি নিষ্কাষনের ব্যবস্থা করে কর্তৃপক্ষ কৃষকদের হাসি ফোটানোর ব্যবস্থা করবেন এমন প্রত্যাশা ভুক্ত ভোগীদের।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020
Design & Development By JM IT SOLUTION