1. munnanews@gmail.com : Mozammel Hossain Munna : Mozammel Hossain Munna
  2. badal.satvnews@gmail.com : Badal Saha : Badal Saha
  3. jmmasud24@gmail.com : Mozammel Hossain Munna : Mozammel Hossain Munna
লাল শাপলা গোপালগঞ্জের বিলের সৌন্দর্যকে বাড়িয়ে দিয়েছে | Dainik Mohona
বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:১৩ অপরাহ্ন
নোটিশ :
দৈনিক মোহনা পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাদের স্বাগতম। করোনা ভাইরাস রোধে নিয়মিত সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার রাখুন, বাইরে গেলে মাস্ক ব্যবহার করুন। ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
গোপালগঞ্জ ৫টি সংবাদিক সংগঠনকে কম্পিউটার উপহার দিলেন জেলা প্রশাসক লাল শাপলা গোপালগঞ্জের বিলের সৌন্দর্যকে বাড়িয়ে দিয়েছে কাশিয়ানীতে বালু ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত ও কৃষিজ উৎপাদন অব্যাহত রাখতে কাজ করে যাচ্ছে সেনাবাহিনী মুকসুদপুরের জলিরপাড় ইউ.পি উপ-নির্বাচনে ৩ প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল যশোর সেনানিবাসের জনসচেতনতা সৃষ্টি মূলক কার্যক্রম অব্যাহত গোপালগঞ্জে ৩০ হাজার বৃক্ষরোপন করবে এলজিইডি টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের শ্রদ্ধা গোপালগঞ্জে বাস চাপায় মা ও তার ৮ মাসের শিশু সন্তান নিহত গোপালগঞ্জে কুইক সার্ভিস ডেলিভারী পয়েন্টের মাধ্যমে উপকার পেতে শুরু করেছে সাধারন মানুষ

লাল শাপলা গোপালগঞ্জের বিলের সৌন্দর্যকে বাড়িয়ে দিয়েছে

  • ..............প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৬ জন সংবাদটি পড়েছেন।

মোহনা রিপোর্ট।।
গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া-টুঙ্গিপাড়ার ছত্রকান্দার বিল, জোয়ারিয়ার বিলসহ বিভিন্ন বিলে প্রাকৃতিকভাবে জন্ম নেয়া লাল শাপলা বিলের সৌন্দয্যকে বাড়িয়ে দিয়েছে। এসব বিলে এমনভাবে লাল শাপলায় ভরে রয়েছে যে, দুর থেকে যেন মনে হবে পুরো বিল লাল গালিচা দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে। কোন গায়ের নববধু লাল শাড়ি পরে যেন বাবার বাড়িতে নায়র এসেছে। প্রাকৃতিক এ সৌন্দয্য উপভোগ করতে দূর-দূরান্ত থেকে লোক আসেন। উপভোগ করেন প্রাকৃতিক এ অপার সৌন্দর্য। চারিদিকে সবুজ মাঠ আর মাঝখানে লাল শাপলা এ যেন আরেকটি বাংলাদেশ।
গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া ও টুঙ্গিপাড়া উপজেলার অন্ততঃ ২৫টি বিল ভরে রয়েছে লাল শাপলায়। এসব বিল সাধারনতঃ এক ফসলি জমি। এসব বিলে বোরো মৌসুমেই শুধুমাত্র ধান চাষ করেন কৃষকেরা। এরপর জমিতে বর্ষার পানি এসে যায়। সেখানেই প্রতিবছর প্রাকৃতিকভাবে জন্ম নেয় লাল শাপলা।
তবে অনেক বছর আগে এসব বিলের জমিতে সাদা-সবুজ শাপলা জন্ম নিলেও বিগত ১৯৮৮ সালের বন্যার পর থেকে শুরু হয় লাল শাপলা। চারিদিক লালে লালে একাকার হয়ে যায়। এ লাল শাপলার বিল দেখতে অনেকেই আসেন দূর দূরান্ত থেকে। এ দৃশ্য এক অভুতপূর্ব। যা মন ভরিয়ে দেয় আগত দর্শকদেরকে।
এ শাপলা একদিকে যেমন বিলের সৌন্দয্য বাড়িয়ে দিয়েছে, অন্যদিকে খেটে খাওয়া দরিদ্র লোকেরা বর্ষাকালে যখন কোন কাজ থাকেনা তখন তা বাজারে বিক্রিও করে থাকেন। এ শাপলা সবজি হিসাবে এ অঞ্চলের মানুষ খেয়ে থাকেন।
লাল শাপলার বিলে ঘুরতে আসা মেহেদী হাসনাত, মিজানুর রহমান জানান, বিভিন্ন বিলে ফুঁটে রয়েছে অসংখ্য লাল শাপলা। মনে হয় যেন কোন লাল শাড়ি পরা নববধু দাড়িয়ে আছে।
এখানে আসলে মন ভরে যায়। এ যেন আমার দেশের এক অপূর্ব চিত্র। এ দৃশ্য উপভোগ করতে আসা উচিত ভ্রমন পিপাষুদের।

শাপলা বিলে লাল শাপলা দেখতে যেয়ে আনন্দে আত্মহারা স্কুল শিক্ষার্থী মাহজাবিন মোহনা জানায়, সে কখনো লাল শাপলার বিল দেখেনি।  করোনার কারনে  স্কুল বন্ধ, কোথাও যাবার মতো জায়গা নাই, তাই বাবা-মায়ের সাথে লাল শাপলার বিলে এসেছেন। বিলের সৌন্দর্য  দেখে সে খুবই আনন্দিত।
কোটালীপাড়ার কান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান উত্তম কুমার বাড়ৈ জানান, তার ইউনিয়নে এই সময়ে অসংখ্য পর্যটক আসেন। লাল শাপলার বিল দেখে তারা অভিভূত হন। আনন্দ পান। যারা কখনো লাল শাপলার বিলে আসেননি তাদেরকে সেখানে যাবার জন্য তিনি আমন্ত্রন জানান।
গোপালগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপপরিচালক ড. অরবিন্দ কুমার রায় বলেন, গোপালগঞ্জের বিভিন্ন বিলে জন্ম নেয়া শাপলা একটি উপাদেয় সবজি হিসাবেও পরিচিত। এতে প্রচুর পরিমান আয়রন, সিলিকন ও আয়োডিন রয়েছে যা মানবদেহের জন্যও উপকারী। আর পাশাপাশি বিলের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতেও ব্যাপক ভূমিকা রাখেেছ বলে জানান তিনি।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020
Design & Development By JM IT SOLUTION